Tripura : আগরতলায় শীত বস্ত্র নিয়ে এসে গেছে ভূটানের শীত বস্ত্রের ব্যবসায়ীরা

ছবি – ফাস্ট ন্যাশান

উৎসবের মরশুমের শেষ প্রান্তে পৌঁছে গেছে রাজ্যবাসী। অপেক্ষা এবার শীতকে স্বাগত জানাবার।  শিতল আহবে কিছুটা সময় কাটাবার। তবে এই ঋতু পরিবর্তের সময়ে অনেক সময়ই দেখা দেয় শারীরিক অসুস্থতা। বর্ষা ও গরমের দাপাদাপির পর শীতের পরশ গায়ে মেখে নিতে প্রস্তুত রাজ্যের   মানুষ। এমনিতে এখন ভোরের দিকে হাল্কা শীত অনুভূত হয় রাজ্য জুরে। সাথে সাথে রয়েছে শিশির বিন্দু। শীতের মরশুমের সুড়ুতেই পরিযায়ী পাখীদের ন্যায় হাজির ভুটিয়ারা। রাজধানীর শকুন্তলা মার্কেট এলাকায় এবারও শীত বস্ত্র নিয়ে এসে গেছে সুদূর ভূটান থেকে আগত শীত বস্ত্রের ব্যবসায়ীরা। প্রতি বছরের ন্যায় চলছে অস্থায়ী ছাউনি তৈরির কাজ। এবার মোট ১৮ টি অস্থায়ী দোকান নিয়ে বসবে ভুটানীরা। চলতি মাসের ১৫ তারিখ থেকে শিত বস্ত্রের বিকি কিনি শুরু হবে। তবে এখুনি বিক্রি কেমন হবে তা নিয়ে ভাবতে নারাজ। এই বছর ভাল শীত পড়লে তাদের মুখে চওড়া হাঁসি ফুটবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা। শিশুদের শিত বস্ত্রে এবার তাদের বিশেষ নজর রয়েছে। এছাড়াও থাকছে সব বয়সের মানুষের জন্য শিত বস্ত্রের বিপুল সম্ভার। গত বার শেষ দিকে বিক্রি হয়েছিল ভাল। তবে আবহাওয়ার পরিবর্তিত রুপ তাদের কিছুটা চিন্তায় ফেলেছে। শকুন্তলা মার্কেটে চলছে অস্থায়ী স্টল নির্মাণের কাজ। একাংশ ভূটানীদের বক্তব্য এবছর তাদের বিক্রি ভাল হবে। ক্রেতাদের কথা মাথায় রেখে দাম সাধ্যের মধ্যে রাখা হয়েছে। প্রতি বছর আসেন। এভাবেই তাদের সংসার চলে। তাই ত্রিপুরাকে ভাল বেসে এবারও তারা এসেছেন বলে জানান। গুনগত মান বজায় রেখে শীত বস্ত্র নিয়ে এসেছেন ভুটান, নেপাল থেকে বলে জানান এক ভুটানী।


মানিক সাহা, আগরতলার প্রতিনিধি | ফাস্ট ন্যাশান |


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Next Post

রাজার ছেলে রাজাই হন! হত্যা করা হয়েছে কংগ্রেস আদর্শকে, কারণ দিয়ে ব্যাখ্যা ক্ষুব্ধ কর্মীদের

Thu Oct 10 , 2019

সোশ্যাল মিডিয়ায় আমরা

সপ্তাহের সেরা খবর

%d bloggers like this:
Fast Nation

FREE
VIEW