“প্রধানমন্ত্রীর মতো আচরণ করেন না নরেন্দ্র মোদি”, “Tubelight” টিপ্পনীর পাল্টা রাহুল গান্ধির

     

বৃহস্পতিবার নাম না করে রাহুল গান্ধিকে “টিউব লাইট” (Tube Light Jibe) উপমা দিয়ে খোঁচা দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদি (Prime Minister)

বৃহস্পতিবার নাম না করে রাহুল গান্ধিকে “টিউব লাইট” (Tube Light Jibe) উপমা দিয়ে খোঁচা দিয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদি (Prime Minister)। তার ঠিক একদিনের মাথায় পাল্টা জবাব দিলেন ওই কংগ্রেস সাংসদ (Rahul Gandhi)। “প্রধানমন্ত্রীর মতো আচরণ করেন না নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi)”,

শুক্রবার এমন ভাষায় সমালোচনা করলেন রাহুল গান্ধি। তিনি বলেন, “একজন প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ ব্যক্তিত্ব, আচরণ বিধি ও পদমর্যাদা আছে। কিন্তু আমাদের প্রধানমন্ত্রীর সে সব কিছুই নেই। প্রধানমন্ত্রীর মতো আচরণ উনি করেন না।” বৃহস্পতিবার রাহুল গান্ধি বলেছিলেন, তাঁকে উদ্দেশ্য করে বলা “টিউব লাইট” মন্তব্যের কোনও জবাব দেবেন না তিনি। বরং আর্থিক মন্দা ও বেকারত্ব নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে তোপ দেগেছিলেন সনিয়া তনয়। সেই পথের উলটো দিকে হেঁটে শুক্রবার সংসদের বাইরে “টিউব লাইট” মন্তব্যকে কটাক্ষের সুরে বিঁধলেন রাহুল গান্ধি। এদিন আবার লোকসভায় প্রায় হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়েছিলেন বিজেপি ও কংগ্রেস সাংসদরা।

এক কংগ্রেস সাংসদের নথিবদ্ধ প্রশ্নের জবাব না দিয়ে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী হর্ষ বর্ধন রাহুলকে আক্রমণের নিশানা বানান। সংসদের বাইরে করা কংগ্রেস সাংসদের মন্তব্য নিন্দনীয়, এমন সুর শোনা গিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রীর গলাতে। আর এতেই রে রে করে তেড়ে আসেন কংগ্রেস সাংসদরা। বিরোধীদের প্রশ্নের জবাব দেওয়া তো দূর অস্ত, উলতে কণ্ঠরোধের চেষ্টা করছে ট্রেজারি বেঞ্চ। এমন অভিযোগ তোলা হয় বিরোধী শিবির থেকে। একই সুর শোনা গিয়েছে রাহুল গান্ধির কণ্ঠেও। তিনি সাংবাদিকদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীকে বাঁচাতে সংসদে সংগঠিত অশান্তির পরিবেশ তৈরি করছে বিজেপি। রোধ করছে বিরোধী কণ্ঠ।  এদিকে বৃহস্পতিবার ঠিক কী বলেছিলেন প্রধানমন্ত্রী? সেদিন সংসদে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর বিতর্ক চলাকালীন প্রধানমন্ত্রীর ভাষণের মধ্যেই বলতে ওঠেন কংগ্রেস সাংসদ রাহুল গান্ধি। সেই সময় নাম না করে কংগ্রেস সাংসদকে “টিউব লাইট” কটাক্ষ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি বলেছিলেন, আমি প্রায় ৩০-৪০ মিনিট ধরে বলছি, কিন্তু সেই কারেন্ট বিরোধী শিবিরে পৌঁছতে এতক্ষণ সময় লাগলো। অনেক টিউব লাইট আছে, যেগুলো জ্বলতে বেশি সময় নিয়ে ফেলে। প্রধানমন্ত্রীর এই মন্তব্যের পর ট্রেজারি বেঞ্চে হাসির রোল ওঠে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close