শ্রেয়সের দুরন্ত শতরান ও রাহুলের ঝোড়ো ইনিংস

ভাল শুরু করেও ইনিংস বেশিদূর টেনে নিয়ে যেতে পারলেন না পৃথ্বী শ ও মায়াঙ্ক আগরওয়াল। নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে একদিনের সিরিজে আজ জোড়া অভিষেক হল দুই ক্রিকেটারের। ওপেনিংয়ে নতুন জুটি। শুরুটাও বেশ ভাল করেছিলেন দুই ক্রিকেটার। কিন্তু ২০ রান করার পরেই ফিরে যান পৃথ্বী। ৩২ রান করলেন মায়াঙ্ক। পরপর দুটি উইকেট হারিয়ে বেকায়দায় পড়ে গিয়েছিল টিম ইন্ডিয়া। কিন্তু পরিস্থিতি সামাল দেন অধিনায়ক ও শ্রেয়স আইয়ার। বিরাট ৫১ রান করে ফিরে গেলেও একদিনের আন্তর্জাতিকে প্রথম শতরান করে ফেললেন শ্রেয়স আইয়ার। সঙ্গে লোকেশ রাহুলের ঝোড়ো ৮৮ রানের ইনিংস। যার সুবাদে ৫০ ওভার শেষে রানের পাহাড়ে ভারত। হ্যামিলটনে ভারত তুলল চার উইকেট হারিয়ে ৩৪৭। 
টি২০ সিরিজে হোয়াইটওয়াশ হওয়ার ধাক্কা কিউয়িরা এখনও সামলে উঠতে পারেনি। তা বোঝা গেল ম্যাচের শুরু থেকেই। চোটের জন্য কিউয়ি দলেও নেই কেন উইলিয়ামসন। টস জিতে প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল কিউয়িরা। ৫৪ রানের ভিতরে ভারতের দুই ওপেনারকে ফিরিয়েও দিয়েছিল। তারপরেই চওড়া হয়ে গেল অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও শ্রেয়স আইয়ারের ব্যাট। দু’‌জনে তৃতীয় উইকেটে ১০২ রান যোগ করলেন। ৫১ রান করে ফিরে যান কোহলি। এরপর ম্যাচ ধরে নেন শ্রেয়স ও রাহুল। ব্যাটিং গভীরতা বাড়ানোর জন্য বুধবার মিডল অর্ডারে খেলানো হল রাহুলকে। তিনি কিন্তু আস্থার পূর্ণ মর্যাদা দিলেন। ৬৪ বলে ঝোড়ো ৮৮ করলেন। তিনটি চারের পাশাপাশি মারলেন ছয়টি ছক্কা। শ্রেয়স করে যান দুরন্ত ১০৩। তাঁর ১০৭ বলের ইনিংসে রয়েছে ১১টি চার ও ১টি ছয়। শেষে নেমে কেদার যাদব গুরুত্বপূর্ণ ২৬ করে গেলেন। কোনও কিউয়ি বোলারকেই রেয়াত করেননি শ্রেয়স, রাহুলরা। দু’‌জনে চতুর্থ উইকেটে যোগ করেন ১৩৬ রান। 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close