ফ্লিপকার্ট, বিগবাস্কেটের পরিষেবা বন্ধ, লকডাউনের গেরোয় শিকেয় অনলাইন ব্যবসা

     

লকডাউনের জেরে তৈরি হওয়া পরিস্থিতিতে জোর ধাক্কা খেয়েছে একাধিক অনলাইন শপিং সংস্থার ব্যবসা। আর তার ফলে আপাতত ঝাঁপ বন্ধ রেখেছে ফ্লিপকার্ট ও  বিগবাস্কেটের মতো অনলাইন শপিং সংস্থাগুলি। পরিস্থিতি বিরূপ জেনেও, এই মুহূর্তে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠা স্যানিটাইজার বা স্বাস্থ্য সংক্রান্ত অত্যাবশ্যকীয় পণ্যগুলি গ্রাহকদের দরজায় পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে অ্যামাজনের মতো সংস্থা।

করোনা পরিস্থিতির জেরে দেশ জুড়ে লকডাউন ঘোষণা করলেও, জরুরি পরিষেবা চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। কিন্তু, বাস্তবে উল্টো অভিজ্ঞতাই হচ্ছে অনলাইন শপিং সংস্থাগুলির। এত দিন খাবার, মুদিখানা পণ্য এবং ওষুধপত্রের মতো প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র সরবরাহ করে এলেও, করোনার কোপে এ বার দেশ জুড়ে ধাক্কা খাচ্ছে ওই সব সংস্থাগুলি। তাদের অভিযোগ, কোথাও কোথাও স্থানীয় প্রশাসন অতিসক্রিয় হওয়ায় কোপ পড়ছে জরুরি পরিষেবার উপরে। কোথাও বা আটকে দেওয়া হচ্ছে সংস্থাগুলির পণ্যবোঝাই ট্রাক। গত কয়েক দিন ধরেই চলছে এমন পরিস্থিতি।

একটি জাতীয় সংবাদমাধ্যমকে দেওয়া একটি সাক্ষাৎকারে অনলাইন শপিং সংস্থা বিগবাস্কেটের এক কর্তা অভিযোগ করছেন,  ‘‘জরুরি পরিষেবা চালু রাখতে কেন্দ্রীয় সরকার স্পষ্ট নির্দেশিকা দিলেও, স্থানীয় প্রশাসনের বাধায় আমরা সেই কাজ জারি রাখতে পারছি না।’’ আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত দেশ জুড়ে টানা ২১ দিন লকডাউনের ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তবে জনসাধারণের সুবিধার্থে সমান্তরাল ভাবে জরুরি পরিষেবাও চালু রাখার নির্দেশ দিয়েছেন। কিন্তু  সংস্থাগুলির অভিযোগ, বাস্তবে ছবিটা একেবারেই এর উল্টো। আর সরাসরি তার ফল ভোগ করতে হচ্ছে ক্রেতাদের। সংস্থাগুলি যে পণ্য পৌঁছে দিতে অসুবিধার মুখে পড়ছে বিষয়টি অ্যাপের মাধ্যমে ক্রেতাদেরও জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close